চট্টগ্রামে কমেছে মুরগি-গরুর মাংসের দাম, অপরিবর্তিত সবজি ও মাছ

রমজান মাসে জেলা প্রশাসনের বাজার মনিটরিংয়ের ফলে চট্টগ্রামের অধিকাংশ কাঁচাবাজারে গরুর মাংস ও মুরগির দাম কমে এসেছে। তবে গরুর মাংস ও মুরগির দাম কমলেও অপরিবর্তিত রয়েছে সবজি ও মাছের দাম। বাজার নিয়ে ক্রেতারা সন্তুষ্টি প্রকাশ করলেও বিক্রেতাদের মাঝে রয়েছে চাপা ক্ষোভ।

শুক্রবার (২৪ মে) কাজির দেউড়ি, চকবাজার, রিয়াজুদ্দিন বাজারসহ বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। বাজার ঘুরে দেখা যায়, আগে ব্যবসায়ীরা গরুর মাংস ৬৫০ টাকা থেকে ৭০০ টাকায় বিক্রি করলেও এখন বিক্রি হচ্ছে ৫২৫ থেকে ৫৫০ টাকায়। খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭২৫ টাকা। এছাড়া সপ্তাহের ব্যবধানে বাজারে বয়লার মুরগির দাম ১০ টাকা কমে এখন বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৪৫ টাকায়। লেয়ার মুরগি ১৮০ টাকা ও পিস কক ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রিয়াজুদ্দিন কাঁচাবাজারের মাছ বিক্রেতা রমিজ উদ্দীন সিভয়েসকে জানান, সবকিছু নির্ধারিত দামেই বিক্রি হচ্ছে। ক্রেতারা কিনছেন, কারও কোন অভিযোগ নেই। তবে দাম কমে যাওয়ার বিষয়ে কোনো কিছু বলতে অপরাগতা প্রকাশ করেন তিনি।

অপরদিকে সবজির মধ্যে বেগুনের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। গত সপ্তাহে বেগুন ৫০ টাকা হলেও আজ প্রতি কেজি বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা, আলু ২০ টাকা, কচুরলতি ৪০ টাকা, করলা ৫০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, বরবটি ৫০, কাকরোল ৫০ টাকা, ঝিঙা ৩০ টাকা, চিচিঙ্গা ৪০ টাকায়, পেঁপে ৩০ টাকায়, শশা ৪০ টাকায়, গাঁজর ৫০ টাকায়, টমেটো ৩০ টাকায়, লেবু হালি ২০ টাকায়, কাঁচা মরিচ ৩০ টাকায়।

শাকের মধ্যে লাউ শাক (আঁটি) ২০ টাকায়, লাল শাক ১৫ টাকা, পালংশাক ১০ টাকা, পুঁইশাক ১৫ টাকা ও ডাটাশাক ২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া প্রতি কেজি রুই বিক্রি হচ্ছে ৪০০ টাকা, কাতলা ৩৫০ টাকা, তেলাপিয়া ২০০ টাকা, গলদা চিংড়ি আকারভেদে ৭০০ থেকে ১০০০ টাকা, পুঁটি ২৫০ টাকা, পোয়া ৬০০ টাকা, মলা ৫০০ টাকা, পাবদা ৬০০ টাকা, বোয়াল ৬০০ টাকা, শিং ৮০০ টাকা, কই ২৫০ টাকা ও ইলিশ মাছ ১২০০ টাকায়।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *