কক্সবাজারে বন্দুকযুদ্ধে দুই রোহিঙ্গাসহ নিহত ৩

কক্সবাজারের টেকনাফের শামলাপুর ও শহরের কাটা পাড়ার এলাকায় পুলিশের সাথে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে দুই রোহিঙ্গা মানবপাচারকারী এবং এক ইয়াবা কারবারি নিহত হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয় অস্ত্র, গুলি ও ইয়াবা।

মঙ্গলবার (১৩ মে) ভোরে এ পৃথক বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। টেকনাফের বাহারছাড়া শামলাপুর মেরিনড্রাইভ সড়ক এলাকায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত দুই রোহিঙ্গা মানবপাচারকারী হলেন, শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রয় নেয়া আব্দুর রহিমের ছেলে আজিম উল্লাহ, জামতলী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রয় নেয়া মৃত রহিম আলীর ছেলে আব্দুস সালাম। কক্সবাজার শহরের কলাতলী কাটা পাহাড় এলাকায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত ইয়াবা কারবারি হলেন পাহাড়তলীর রহমানিয়া মাদ্রাসা এলাকার জহির হাজীর ছেলে ছৈয়দুল মোস্তফা ভুলু। পৃথক ঘটনাস্থল থেকে ৩টি অস্ত্র, ৭ রাউন্ড গুলি ও ৪০০ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, টেকনাফের বাহারছাড়া শামলাপুর মেরিনড্রাইভ সড়ক এলাকায় মানবপাচারকারী চক্রের সদস্যরা জড়ো হওয়ার খবরে অভিযান চালানো হয়। এ সময় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ২ জন রোহিঙ্গা মানবপাচারকারীকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।  পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ২টি বন্দুক ও ৫টি গুলি উদ্ধার করে। 

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি মো. ফরিদ উদ্দিন খন্দকার জানান, চিহ্নীত ইয়াবা কারবারি ও সন্ত্রাসী ছৈয়দুল মোস্তফা ভুলুকে গ্রেফতার করে তার স্বীকারোক্তি মতে ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধারে গেলে পুলিশকে লক্ষ করে গুলি ছুঁড়ে তার বাহিনীর সদস্যরা। এতে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় ছৈয়দুল মোস্তফা ভুলুকে গুলিবিদ্ধ উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৪শ পিচ ইয়াবা, ১টি বন্দুক ও ২টি রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে। এলাকার চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত ভুলুর বিরুদ্ধে মাদকসহ বিভিন্ন মামলা রয়েছে।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *